যে কারণে গৌরীর নাম আয়েশা রাখতে চেয়েছিলেন শাহরুখ

বিনোদন ডেস্ক:

বলিউডের ‘বাদশা’ শাহরুখ খান। আর তার বেগম গৌরী। ভালোবেসে বিয়ে করেছেন এই জনপ্রিয় জুটি। এখনো তারা বলিউডের ‘মোস্ট স্টাইলিশ কাপল’।

কিন্তু তাদের প্রেমের পথ মোটেও মসৃণ ছিল না। গৌরী ছিলেন হিন্দু ব্রাহ্মণ পরিবারের মেয়ে। অন্যদিকে শাহরুখ মুসলিম। স্বাভাবিকভাবেই এই বিয়ে মেনে নিতে চায়নি গৌরীর পরিবার। শাহরুখও তখন অভিনেতা হিসেবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। এছাড়া তিনি সিনেমায় কাজ করতে চান শুনে গোরীর বাড়ির লোকজন আরো বেঁকে বসেন। প্রায় পাঁচ বছর লুকিয়ে প্রেম করেন তারা। পরবর্তী সময়ে পরিবারকে রাজি করিয়ে বিয়ে করেন। ১৯৯১ সালের ২৫ অক্টোবর হিন্দু মতে বিয়ে করেন শাহরুখ-গৌরী।

বিয়ের সময়ও তাদের ধর্ম নিয়ে আলোচনা হয়। পুরোনো এক সাক্ষাৎকারে এ নিয়ে তার বিবাহোত্তর সংবর্ধনার একটি মজার ঘটনা জানান শাহরুখ। এই অভিনেতা বলেন, ‘আমার মনে আছে, গৌরীর পরিবারের সবাই বিবাহোত্তর সংবর্ধনায় এসেছিলেন। আমি তাদের সম্মান করি। কিন্তু তারা সবাই একটু সেকেলে মানসিকতার। আমি দুপুর সোয়া একটার দিকে সংবর্ধনার অনুষ্ঠানে আসি। তখন যারা সেখানে বসেছিলেন, সবাই কানাকানি করতে থাকে— সে তো মুসলমান ছেলে। সে কি গৌরীর নাম পরিবর্তন করবে? গৌরী কি মুসলিম হবে?’

সেই মুহূর্তে গৌরীকে বোরকা পরতে বলে সবাইকে অবাক করে দিয়েছিলেন বলিউডের ‘কিং অব রোমান্স’খ্যাত এই তারকা। পাশাপাশি তার নাম পরিবর্তন করে আয়েশা রাখতে চেয়েছিলেন। শাহরুখ বলেন, ‘তারা সবাই পাঞ্জাবি ভাষায় কথা বলছিলেন। তখন আমি ঘড়িতে সময় দেখি এবং বলি, গৌরী, তোমার বোরকা পরো এবং এখনই নামাজ পড়তে যাও।সবাই অবাক হয়ে তাকিয়ে ছিলেন। তারা ধারণা করেছিলেন, গৌরী ধর্মান্তরিত হয়ে গেছে। এরপর আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলি, এখন থেকে গৌরী সবসময় বোরকা পরবে। বাড়ির বাইরে বের হবে না। আর তার নাম পরিবর্তন করে আয়েশা রাখা হবে এবং সে এটিতে রাজি আছে।’ যদিও নিছক মজার ছলেই এটি বলেছিলেন শাহরুখ।

ধর্ম নিয়ে কখনোই স্ত্রীকে জোর করেননি এই অভিনেতা। এখনো হিন্দু ধর্মই মানেন গৌরী। অন্যদিকে ইসলাম ধর্ম অনুসরণ করেন শাহরুখ। এ প্রসঙ্গে গৌরী বলেন, ‘আমাদের এ বিষয়ে ভারসাম্য রয়েছে। আমি শাহরুখের ধর্মকে সম্মান করি, তার মানে এই নয় আমি মুসলিম হয়ে যাব। আমি এই মতে বিশ্বাসী নই। আমরা নিজ নিজ ধর্ম অনুসরণ করি। এ ব্যাপারে আমরা কাউকে অসম্মান করি না। শাহরুখও কখনো আমার ধর্মকে অসম্মান করে না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *