নান্দনিক চাঁদপুর পৌরসভা গড়ার নির্বাচন আজ

চাঁদপুর প্রতিনিধি :

১২৪ বছরের পুরনো চাঁদপুর পৌরসভার নির্বাচন আজ শনিবার (১০ অক্টোবর)। এবারই দলীয় প্রতীক এবং প্রথম ইভিএম পদ্ধতিতে চাঁদপুর পৌরসভার নির্বাচন হবে। সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত পৌরসভার ১৫ ওয়ার্ডে ৫২টি ভোট কেন্দ্রে চলবে ভোট গ্রহণ। নিরাপত্তা ও শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রেখে নির্বাচন গ্রহণে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন নির্বাচন কমিশন, জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন।

এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী জিল্লুর রহমান জুয়েল, বিএনপি প্রার্থী আক্তার হোসেন মাঝি, বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী মামুনুর রশিদ বেলাল। এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী ৫০ ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ১৪ জনসহ মোট ৬৭ জন প্রার্থী। কাউন্সিলর পদেও ইতোমধ্যেই আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি তাদের দল সমর্থিত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছে।

তিন মেয়র প্রার্থী
চাঁদপুর পৌর নির্বাচনকে ঘিরে পৌরবাসীর মধ্যে আগ্রহের কমতি নেই। পৌরবাসী বলছেন, আগামী দিনে যারা পৌর এলাকার ব্যাপক উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারবে তাকেই ভোট দেবেন। যিনি ক্লিন ইমেজ, সুশিক্ষিত এবং মার্জিত আচরণের অধিকারী তাকেই চাইবে পৌরবাসী।
জেলা নির্বাচন অফিস থেকে প্রাপ্ত তথ্য মতে, চাঁদপুর পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ১৭ হাজার ৮৮৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৫৯ হাজার ২৭ জন এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ৫৮ হাজার ৮৫৯ জন। চাঁদপুর পৌরসভায় ওয়ার্ড সংখ্যা ১৫টি, ভোটকেন্দ্র ৫২টি ও ভোট গ্রহণ কক্ষ সংখ্যা ৩০৫ টি। প্রতিটি কক্ষে দু’টি করে ইভিএম মেশিন থাকবে।
নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে সম্পন্ন করতে সকল ধরণের প্রস্তুতি গ্রহন করেছেন বলে জানিয়েছেন চাঁদপুরের নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার।

চাঁদপুর পৌর নির্বাচন
জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, নির্বাচনের ১৫টি ওয়ার্ডে জেলা প্রশাসনের ১৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়াও দায়িত্ব পালন করবেন পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটেলিয়ান আনসারের সমন্বয়ে মোবাইল ফোর্স ৩টি, স্ট্রাইকিং ফোর্স ১টি। র‌্যাবের ৬টি মোবাইল টিম ও বর্ডারগার্ড বাংলাদেশের ২ প্লাটুন সদস্য।
এদিকে সদর নির্বাচন অফিসের কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন জানান, চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনে ২ সেট করে মোট ৬১০ সেট ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) মেশিন আনা হয়েছে। এছাড়া এক সেট বেকআপ রাখা হবে।
এদিকে চাঁদপুর পৌর নির্বাচন উপলক্ষে পৌর এলাকায় শুক্রবার মধ্য রাত থেকে শনিবার রাত ১২টা পর্যন্ত সব ধরনের যান্ত্রিক যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া পৌর এলাকায় তিন দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাজেদুর রহমান খান।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘আমরা কোনও কেন্দ্রকেই ঝুঁকিপূর্ণ বলছি না। আমাদের কাছে সব কেন্দ্রই গুরুত্বপূর্ণ। ইতোমধ্যেই সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *