ভিয়েনায় বন্দুকধারীর হামলায় নিহত ৩, আহত ১৫


আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

অস্টিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় ছয় স্থানে একদল অজ্ঞাত বন্দুকধারীর গুলিতে তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। সোমবার স্থানীয় সময় রাত আটটার দিকে ভিয়েনার সাইটেনসটেটিনগাস এলাকাসহ ছয়টি এলাকায় এই গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। অস্টিয়ার চ্যান্সেলর সিবাসটিয়ান খুর্জ ঘটনাটিকে ‘ভয়ংকর সন্ত্রাসী হামলা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, আহতদের মধ্যে একজন পুলিশ অফিসারও রয়েছেন। ছয়টি হামলার মধ্যে একটি হামলা হয়েছে ভিয়েনার মেইন স্ট্রিটের একটি সিনাগগের পাশে। তবে পুলিশ এখনও নিশ্চিত নয় যে হামলার লক্ষ্যবস্তু সিনাগগ ছিল কিনা।

এক টুইট বার্তায় ইহুদি সম্প্রদায়ের নেতা অসকার ডাস বলেছেন, হামলাকারীদের টার্গেট সিনাগগ ছিল কিনা সেই বিষয়টি এখনো পরিষ্কার নয়। কারণ হামলার সময়ে সিনাগগ বন্ধ ছিল।

হামলায় এক নারীর মৃত্যুর খবর দেশটির সংবাদমাধ্যম ওআরএফকে নিশ্চিত করেছেন ভিয়েনার মেয়র মাইকেল লুডওইগ। পুলিশ জানিয়েছে, সন্দেহভাজন একজন সন্ত্রাসী পুলিশের গুলিতে নিহত হলেও বাকি বন্দুধারীরা এখনও পলাতক। তাদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে মঙ্গলবার শহরটির সকল স্কুলকে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি শহরটির বাসিন্দাদের সিটি সেন্টার এড়িয়ে বাসায় থাকতে আহ্বান করেছেন শহর কর্তৃপক্ষ।

শহরটির বড় একটি অংশ একটি ঘিরে রেখেছে নিরাপত্তা রক্ষাকারী বাহিনী। কিছুক্ষণ পরপর সাইরেন ও হেলিকপ্টারের শব্দ শোনা যাচ্ছে।

এক টুইট বার্তায় চ্যান্সেলর সিবাসটিয়ান খুর্জ বলেছেন, ‘আমরা খুব কঠিন সময় পার করছি। এমন ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী হামলা পরিচালনাকারীদের ধরতে আমাদের পুলিশ বাহিনী নিরলসভাবে কাজ করছে। আমরা সন্ত্রাসীদের এমন আক্রমণে ভীত হব না। সর্বশক্তি দিয়ে তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবো।’

হামলার ঘটনায় ‘গভীর উদ্বেগ’ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাজ্যর প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। বলেছেন, বিট্রেন সবসময় অস্ট্রিয়ার পাশে থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *