বাইডেন ১৩১, ট্রাম্প ১০৮


আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফলে ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন এগিয়ে আছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৩১টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোটে এগিয়ে আছেন তিনি। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ১০৮টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোটে এগিয়ে আছেন। খবর ইউএসএ টুডের

যুক্তরাষ্ট্রে মোট ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা ৫৩৮। মাইন ও নেব্রাসকা এই দুটো অঙ্গরাজ্য বাদে বাকি সবগুলো রাজ্যের ইলেকটোরাল ভোট যোগ দিলে যে প্রার্থী ২৭০টি বা তারও বেশি ভোট পাবেন তিনিই প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হবেন।

প্রাথমিক ফলাফলে কেনটাকি রাজ্যের আটটি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট জিতেছেন ট্রাম্প। ভার্মন্টের তিনটি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট পেয়েছেন বাইডেন। এরপরই আরও কয়েকটি রাজ্যের ভোট গণনার ফলাফল জানা যায়। ভার্মন্টের পাশপাশি ভার্জিনিয়ায়ও জয় পেয়েছেন বাইডেন। সেখানে ইলেকটোরাল কলেজ ভোট সংখ্যা ১৩টি। কেনটাকির পাশাপাশি ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার ৫টি এবং সাউথ ক্যারোলিনার ৯টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট জিতে নিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে ইলেকটোরাল ভোটে পিছিয়ে থাকলেও জনগণের ভোট এগিয়ে আছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ইন্ডিয়ানা, আরকানসাসে বাইডেনকে পেছনে ফেলে এগিয়ে আছেন ট্রাম্প। অপরদিকে, ম্যাসাচুসেটস এবং নিউ জার্সিতে এগিয়ে আছেন বাইডেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অঙ্গরাজ্যে একসঙ্গে ভোট হলেও মূলত সবার নজর থাকে ব্যাটলগ্রাউন্ড খ্যাত কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের দিকে। এগুলোকে বলা হয় সুইং স্টেট। নির্বাচনী ফলাফল নির্ধারণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে এসব অঙ্গরাজ্য। এ বছর আটটি অঙ্গরাজ্যকে সুইং স্টেট বলা হচ্ছে। এগুলো হলো ফ্লোরিডা, পেনসিলভানিয়া, ওহাইও, মিশিগান, উইসকনসিন, আইওয়া, অ্যারিজোনা ও নর্থ ক্যারোলাইনা।

এর আগে নির্বাচনের প্রথম দিন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিজেদের পক্ষে প্রথম জয় দাবি করেন তারা। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, সারা দেশে আমরা সত্যিই খুব ভালো অবস্থানে আছি। ধন্যবাদ সবাইকে। ইন্ডিয়ানা এবং কেনটাকি রাজ্যে ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার পরপরই তিনি এ মন্তব্য করেন।

জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন। বলেন, পেনসিলভানিয়া, মিশিগান এবং উইসকনসিনে জয়ের ব্যাপারে আশবাদী তিনি। মধ্যপশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যগুলো ব্লু ওয়াল নামে পরিচিত।

এবারের নির্বাচনে প্রায় ১০ কোটি ভোটার আগাম ভোট দিয়েছেন। যা গত একশো বছরের মধ্যে আগাম ভোটের ক্ষেত্রে একটা রেকর্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *