বিশ্বকাপের আগেই নিষিদ্ধ হতে পারতাম : সাকিব


স্পোর্টস রিপোর্টার :

তিন দফা ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তথা আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগকে অবহিত করেননি সাকিব আল হাসান। তাতেই গত অক্টোবরে নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়েছিলেন তিনি। তার বিরুদ্ধে জুয়াড়িদের প্রস্তাব গোপন করার তদন্ত ২০১৮ সালের শেষ দিকে শুরু করেছিল আইসিসি।

দুর্নীতি দমন বিভাগের কর্মকর্তাদের ক্রমাগত জেরার বিষম চাপ নিয়ে গত বছর ওয়ানডে বিশ্বকাপে স্বপ্নের ক্রিকেট খেলেছেন সাকিব। ৬০৬ রানের সঙ্গে ১১ উইকেট নিয়ে রাঙিয়েছিলেন বিশ্বকাপ। যদিও এই টুর্নামেন্টের আগেই নিষিদ্ধ হতে পারতেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ঢাকার উদ্দেশে বিমানে চড়ার আগে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে সাংবাদিক ও ভক্তদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এমনটা বলেছেন সাকিব। বঙ্গবন্ধু টি-২০ কাপ খেলতে গতকাল গভীর রাতে বাংলাদেশে পৌঁছার কথা রয়েছে এই অলরাউন্ডারের।

বিশ্বকাপ না-ও খেলতে পারতেন সাকিব। তদন্ত চলছিল, শাস্তিও হতে পারে বুঝতে পারছিলেন, এর মধ্যেই বিশ্বকাপে পারফর্ম করার জেদ মনে কাজ করছিল কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বলেছেন, ‘ঐ ঘটনা আসলে বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়। তদন্ত শুরু হয়েছিল নভেম্বর-ডিসেম্বরের (২০১৮) দিকে। বিশ্বকাপের আগেই নিষিদ্ধ হতে পারতাম। সেটা হয়নি। তবে ওটা আমাদের মাথায় কাজ করেনি যে এটার কারণে ভালো করতে হবে।’

বিশ্বকাপে ভালো করার দুর্নিবার চেষ্টা ছিল সাকিবের মনে। তিনি বলেছেন, ‘তবে হ্যাঁ, বিশ্বকাপে আমার ভালো করার খুবই ইচ্ছা ছিল। এর আগে যতগুলো বিশ্বকাপ খেলেছি, বলার মতো ভালো করিনি। নিজের যে সুনাম, মনে হয়নি যে বিশ্বমঞ্চে সেটি তুলে ধরতে পেরেছিলাম। আমার কাছে মনে হচ্ছিল এটাই সেরা সময়, বয়সও সমর্থন করছিল। অভিজ্ঞতার দিক দিয়ে ক্রিকেটে একটা সেরা সময় থাকে, সেই দিক দিয়ে আমার জন্য একেবারে যথার্থ একটা সময় ছিল এটা। তখন চেষ্টা করেছি সেটা কাজে লাগাতে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *