পুলিশের জালে ৮ ইজিবাইক চোর

যশোর প্রতিনিধি :

ইজিবাইক চোর চক্রের আট সদস্যকে আটক করেছে যশোর ডিবি পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে আটটি চোরাইকৃত ইজিবাইক ও চুরি করার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

শনিবার (৭ নভেম্বর) দুপুরে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানান। এর আগে শুক্রবার পৃথক অভিযানে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন যশোর সদর উপজেলার আমবটতলা এলাকার আবদুল আজিজের ছেলে রাজু, নূরপুর দক্ষিণপাড়ার জামাল গাজীর ছেলে রবিউল ইসলাম গাজী, যশোর শহরের শংকরপুর এলাকার ইয়ার আলী মোল্লার ছেলে শাহাদৎ, মৃত মিজান শেখের ছেলে আনারুল ইসলাম, ধর্মতলা হ্যাচারিপাড়ার জাকির সরদারের ছেলে শাহিন, মনিরামপুর উপজেলার দোনার গ্রামের আশরাফ আলী বিশ্বাসের ছেলে সোহেল রানা, খুলনার হরিণটানা উপজেলার কৈয়া বাজার এলাকার মৃত ইসমাইল হাওলাদারের ছেলে সুমন হাওলাদার ও দিঘলিয়া উপজেলার হাজিগ্রামের বাবুল মোল্লার ছেলে রাজু মোল্লা।

পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন জানান, গত ২ অক্টোবর রাতে যশোর সদর উপজেলার সরদার বাগডাঙ্গা গ্রামের একটি গ্যারেজ থেকে দুটি ইজিবাইক চুরি হয়। ওই ঘটনায় কলিম বিশ্বাস নামে এক ইজিবাইকচালক ৫ অক্টোবর কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। পরবর্তী সময়ে মামলাটি তদন্তের জন্য ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এরপর ওসি সোমেন দাশের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশের একটি টিম শুক্রবার (৬ নভেম্বর) বিকেলে যশোর শহরের পালবাড়ি এলাকা থেকে রাজু, শাহাদৎ ও শাহিনকে আটক করে। তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ওই দিন রাতে খুলনার হরিণটানা থানার কৈয়া বাজার থেকে চোর চক্রের প্রধান সুমন হাওলাদারকে আটক করা হয়। পরে সুমনের স্বীকারোক্তি মতে খুলনার হরিণটানা ও সোনাডাঙ্গা থেকে আটটি ইজিবাইক উদ্ধার করা হয়।

এসপি আশরাফ জানান, উদ্ধারকৃত মালামালের মধ্যে যশোর সদর উপজেলার সরদার বাগডাঙ্গা গ্রামের গ্যারেজ থেকে চুরি যাওয়া দুটি ইজিবাইক রয়েছে।

পুলিশ সুপার আরো জানান, উদ্ধারকৃত বাকি ছয়টি ইজিবাইকের মালিকরা বৈধ কাগজপত্র নিয়ে যোগাযোগ করলে তাদের আইনি প্রক্রিয়ায় তা ফেরত দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *