উত্তরপ্রদেশে এবার প্রিয়াঙ্কার নেতৃত্বে কংগ্রেস

কলকাতা প্রতিনিধি :

এবার প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর নেতৃত্বেই ভারতের উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনে একা লড়াইয়ের পথে হাঁটছে শতাব্দি প্রাচীন দল কংগ্রেস। গতবারের বিধানসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশে ধরাশায়ী হয়েছিল কংগ্রেস-সপা (সমাজবাদি পার্টি)-বসপার (বিএসপি) মহাজোট। বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল বিজেপি। এরপর ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচন কিংবা সদ্য সমাপ্ত বিধানসভার উপনির্বাচন কোথাও ভাল করতে পারেনি কংগ্রেস। যার জেরে ঘরে বাইরে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে শীর্ষ নেতৃত্বকে। এমন পরিস্থিতিতে উত্তরপ্রদেশে প্রিয়াঙ্কার উপর ভরসা রাখতে চাইছে কংগ্রেস।

উত্তরপ্রদেশে দলের দায়িত্ব আগেই পেয়েছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। কয়েকদিন আগে, কংগ্রেস-সমাজবাদি পার্টির জোট ছেড়েছে বিএসপি। দিনকয়েক আগে কংগ্রেসের মতো বড় দলের বদলে আঞ্চলিক দলের সঙ্গে জোট করার ইঙ্গিত দিয়েছে সপা নেতা অখিলেশ যাদব। এরপরই একলা চলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেসও। খবর, সেই লড়াইয়ে নেতৃত্ব দেবেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী।

কংগ্রেস সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি বিহারসহ একাধিক নির্বাচনের ফলাফলের পর রাহুল গান্ধীর নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। কংগ্রেসের নিচুতলার কর্মীদের মধ্যেও তাকে নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে। অগত্যা প্রিয়াঙ্কার উপর ভরসা রাখছে দল। নির্বাচনের ১৮ মাস আগেই লখনউতে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী থাকবেন বলে খবর। তবে খোদ উত্তরপ্রদেশেই প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর বিরুদ্ধেও ক্ষোভ কম নেই।

এদিকে রাজধানী দিল্লির ঐতিহ্যবাহী ইন্ডিয়া গেটের সামনে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর মূর্তি বসানোর দাবি উঠেছে। আগামী বছরের ২৩ জানুয়ারি নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মবার্ষিকীতে ওই মূর্তিটি উদ্বোধনের আবেদনও করা হয়েছে। দেবদত্ত মাজি নামে একজন সমাজকর্মী অনলাইনে এই সংক্রান্ত পিটিশন পোস্ট করার পরেই সাড়া দিচ্ছেন নেটিজেনরা। দেশের প্রাক্তন সেনা কর্মকর্তা মেজর জেনারেল জি ডি বক্সির পাশাপাশি বিভিন্ন ক্ষেত্রের ২৩০০ জনের বেশি মানুষ ইতিমধ্যেই ওই অনলাইন আবেদনে সই করে সমর্থন জানিয়েছেন। টুইটারে পোস্ট করা ওই অনলাইন পিটিশনে দেবদত্ত মাজি লিখেছেন, আগামী ২৩ জানুয়ারি ভারতের হিরো নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকী। ইম্ফল-কোহিমার যুদ্ধে নেতাজির নেতৃত্বে ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল আর্মির ৫৩ হাজার সদস্য আত্মবলিদান দিয়েছিলেন।তার মূর্তি আগামী প্রজন্মকে বলবে কীভাবে আমাদের পূর্বপুরুষরা অনুপ্রবেশকারীদের উৎখাত করতে এক হয়ে লড়াই করেছিলেন। তাই মাননীয় রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে নেতাজির জন্মবার্ষিকীর পবিত্র মুহূর্তে ইন্ডিয়া গেট ও ওয়ার মেমোরিয়াল-এর মাঝে থাকা ফাঁকা জায়গায় তার মূর্তি উদ্বোধন করুন। এতে সমস্ত ভারতীয়র পক্ষ থেকে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে যোগ্য সম্মান জানানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *