চুল সুন্দর ও পরিষ্কার রাখার ৩ পদ্ধতি


মহাকাল প্রতিবেদক | প্রকাশিত : ১৬ ডিসেম্বর ২০২০, ২০:৩২ |

চুল সুন্দর রাখতে কি দিয়ে চুল ধোয়া হচ্ছে তা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। চুলে তেল, শ্যাম্পু ব্যবহারের মতো প্রাকৃতিক পানীয় ব্যবহার উপকারী। এতে মাথার ত্বকের নানা রকমের সমস্যা দূর হয়। রূপচর্চা-বিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে চুল ধুতে উপকারী এমন কয়েকটি প্রাকৃতিক পানীয় সম্পর্কে জানান হল।

অ্যাপল সাইডার :
অ্যাপল সাইডারের পানি মাথার ত্বকে থেকে ময়লা ও জীবাণু পরিষ্কার করার পাশাপাশি পিএইচের ভারসাম্য রাখতে সহায়তা করে।

ব্যবহার পদ্ধতি: দুই টেবিল-চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনিগার দুই কাপ পানিতে মেশান। শ্যাম্পু করার পরে মাসে দুএকবার এই পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। উপকার পাবেন।

পরামর্শ: চুল শুষ্ক হলে এক চা-চামচ মধু এতে যোগ করে নিতে পারেন।

লেবুর পানি :
লেবু ভিটামিন সি সমৃদ্ধ যা কোষকলার উৎপাদন বাড়ায়। ফলে চুলের বৃদ্ধি দ্রুত হয়। এছাড়াও ভিটামিন সি মাথার ত্বকের সিবাম নিঃসরণে ভারসাম্য রক্ষা করে।

ব্যবহার পদ্ধতি: এক টেবিল-চামচ তাজা লেবুর রস দুই কাপ পানিতে ভালো মতো মিশিয়ে নিন। সপ্তাহে একবার বা ১৫ দিন পর পর শ্যাম্পু করার পরে চুল ধুতে লেবুর পানি ব্যবহার করতে পারেন।

পরামর্শ: এতে তাজা অথবা শুকনা পুদিনার পাতা যোগ করতে পারেন। পুদিনার পাতা মাথার ত্বক সতেজ রাখে, রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় ও চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

চা বা কফির পানি :

চা ও কফিতে আছে ক্যাফেইন যা চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। চুল পড়া কমায়। তাই এই ধরনের সমস্যার সমাধান চাইলে ও চুল সুস্থ রাখতে চাইলে চুল ধুতে চা বা কফির পানি ব্যবহার করুন।

ব্যবহার পদ্ধতি: দুই কাপ গরম পানিতে কয়েকটি টি ব্যাগ অথবা দুই টেবিল-চামচ কফি মেশান। পানি ঠাণ্ডা হয়ে আসলে তা দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। সপ্তাহে একবার ব্যবহারে ভালো ফলাফল পাবেন।

পরামর্শ: ভালো ফলাফল পেতে নানা রকম ভেষজ চা ব্যবহার করে পারেন।

মনে রাখতে হবে :

চুল খুব বেশি চিটচিটে থাকলে এই ধরনের পরিষ্কারক ব্যবহার করা ঠিক নয়।

মাথায় এই ধরনের পরিষ্কারক ব্যবহার করে তা কিছুক্ষণ মাথার ত্বকে কাজ করার জন্য সময় দিতে হবে। এরপর তা পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *